Home Blog

মাদার অব হিউম্যানিটি-সমাজকল্যাণ পদক চালু হচ্ছে

একাত্তর নিউজ ডেস্কঃমুক্তিযুদ্ধ, শিক্ষা, কৃষি, সংস্কৃতি, সাহিত্য, সাংবাদিকতার পর এবার জাতীয় পর্যায়ে ‘শেখ হাসিনা মাদার অব হিউম্যানিটি সমাজকল্যাণ পদক’ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।জনগণ ও সমাজসেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসহ সারাদেশের মানুষের মানবিক মূল্যবোধকে জাগ্রত করতে এই পদক চালুর উদ্যোগ নিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

 

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সমন্বয় ও সংস্কার সচিব এনএম জিয়াউল আলম জানান, শেখ হাসিনা মাদার অব হিউম্যানিটি সমাজকল্যাণ পদক নীতিমালা’ অনুযায়ী, পদকের সংখ্যা হবে প্রতি বছর ব্যক্তি পর্যায়ে তিনটি এবং সংস্থা বা প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে দুটিসহ মোট পাঁচটি। তবে সরকার প্রযোজ্য ক্ষেত্রে কোনো বছর উপযুক্ত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান না পেলে পদক সংখ্যা কমাতে পারবে।

শেখ হাসিনা মাদার অব হিউম্যানিটি সমাজকল্যাণ পদকপ্রাপ্ত ব্যক্তি ও সংস্থাকে ১৮ ক্যারেট মানের ২৫ গ্রাম স্বর্ণের একটি পদক, পদকের একটি রেপ্লিকা, দুই লাখ টাকা ও একটি সম্মাননা সনদ দেয়া হবে।

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. জিল্লার রহমান বলেন, ‘শেখ হাসিনা মাদার অব হিউম্যানিটি সমাজকল্যাণ পদক দিতে একটি নীতিমালা প্রক্রিয়াধীন আছে। তবে এটি চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত বিস্তারিত কিছু বলা যাচ্ছে না।’

খসড়া নীতিমালায় বলা হয়েছে, জাতীয় পর্যায়ে মুক্তিযুদ্ধ, শিক্ষা, কৃষি, সংস্কৃতি, সাংবাদিকতা প্রভৃতি বিষয়ে পদকের ব্যবস্থা থাকলেও সমাজকল্যাণে অবদানের কোনো পদক নেই। তাই সমাজকল্যাণ ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় বিশেষ অবদানের জন্য পদক চালু হলে বিশ্বে দেশের মর্যাদা বহুলাংশে বৃদ্ধি পাবে। মানবতার উন্নয়নে সামাজসেবা, সমাজকল্যাণ ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় বিশেষ অবদানের জন্য ‘শেখ হাসিনা মাদার অব হিউম্যানিটি সমাজকল্যাণ পদক’ অন্যতম সর্বোচ্চ জাতীয় পদক হিসেবে গণ্য হবে।

পদকের ক্ষেত্রে সম্ভাব্য ব্যয়েরও একটি প্রাক্কলন করা হয়েছে। পদক প্রদানে ব্যয় হবে ২২ লাখ ৫১ হাজার ৫০০ টাকা। পদকের মনোনয়নের জন্য নীতিমালার সঙ্গে একটি ছকও তৈরি করা হয়েছে।

যেসব ক্ষেত্রে দেয়া হবে পদক:
যেসব ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান ও গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকার জন্য ‘শেখ হাসিনা মাদার অব হিউম্যানিটি সমাজকল্যাণ পদক’ দেয়া হবে সেটাও উল্লেখ করা হয়েছে খসড়া নীতিমালায়।

সুবিধা বঞ্চিত ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর সামাজিক সুরক্ষা প্রদান- বয়স্ক, বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা মহিলাদের কল্যাণ ও পুনর্বাসনে অবদান। প্রান্তিক, অনগ্রসর ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর সামাজিক সুরক্ষা, আত্মনির্ভরশীলকরণ ও কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে অবদানের জন্য এ পুরস্কার দেয়া হবে।

প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সমন্বিত ও সম উন্নয়ন নিশ্চিতকরণ- প্রতিবন্ধী ও নিউরো-ডেভেলপমেন্টাল প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের কল্যাণ, জীবনমান উন্নয়ন, কর্মসংস্থান, ইনক্লুসিভ শিক্ষা বাস্তবায়ন ও সামাজিক সুরক্ষায় উল্লেখযোগ্য অবদানের জন্য এ পুরস্কার দেয়া হবে।

সামাজিক ন্যায়বিচার ও পুনঃএকত্রীকরণ নিশ্চিতকরণ- সুবিধাবঞ্চিত, আইনের সংস্পর্শে আসা, আইনের সঙ্গে সংঘাতে জড়িত শিশু, কারামুক্ত কয়েদি, ভবঘুরে, নিরাশ্রয় ব্যক্তিদের কল্যাণ, উন্নয়ন ও পুনঃএকত্রীকরণ। দীর্ঘস্থায়ী শারীরিক ও মানসিক রোগী বা মাদকাসক্তদের চিকিৎসা, চিকিৎসা সহায়তা, তাদের কল্যাণ, উন্নয়ন, পুনর্বাসন এবং সামাজিক অবক্ষয় রোধে জনসচেতনতা সৃষ্টি।

মানবকল্যাণ ও মানবতাবোধে সমাজ বা রাষ্ট্রকে ইতিবাচকভাবে প্রভাবিত করে এমন কর্মকাণ্ড- কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের এমন কোনো কর্ম যা সমাজের মানুষের মেধা ও মননের বিকাশ, জীবনমান ও পরিবেশের উন্নয়ন, সমাজবদ্ধ মানুষের মানসিক ও স্বাস্থ্যের উন্নয়ন ও সর্বোপরি মানবকল্যাণ ও মানবতাবোধ সমাজ বা রাষ্ট্রকে ইতিবাচকভাবে প্রভাবিত করে।

পদক দেয়ার প্রক্রিয়া:
খসড়া নীতিমালা অনুযায়ী, প্রতি বছর ২ জানুয়ারি সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় আয়োজিত জাতীয় সমাজসেবা দিবস অনুষ্ঠানে এ পদক দেয়া হবে।

প্রাথমিক বাছাইয়ের ক্ষেত্রে জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে জেলা কমিটি, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী/প্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে হবে জাতীয় কমিটি।

খসড়া নীতিমালায় বলা হয়েছে, প্রতি বছর ৫ জুলাই মনোনয়ন আহ্বান, জেলা পর্যায়ের কমিটিতে আবেদন গ্রহণ ৩১ জুলাই, জেলা কমিটিতে মনোনয়ন চূড়ান্ত ১৭ আগস্ট, জেলা কমিটির মন্ত্রণালয়ে মনোনয়ন সুপারিশ পাঠানো ৩১ আগস্ট, মন্ত্রণালয় পর্যায়ে সরকারি প্রতিষ্ঠান মনোনয়ন চূড়ান্তকরণ ২০ আগস্ট, জাতীয় কমিটির মনোনয়ন চূড়ান্তকরণ করা হবে ১৫ অক্টোবর।

জাতীয় পুরস্কার-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদনের জন্য মনোনয়ন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠানো হবে ৩১ অক্টোবর। এরপর প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের পর পুরস্কার চূড়ান্ত হবে।

ওসমানী বিমানবন্দরে ৪০টি স্বর্ণের বারসহ আটক ১

একাত্তর নিউজ ডেস্কঃসিলেট ওসমানী বিমানবন্দরে বিমানের সিটের নিচ থেকে ৪০টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)। উদ্ধারকৃত স্বর্ণের ওজন ৪ কেজি ৬৪০ গ্রাম। যার বাজারমূল্য প্রায় ১ কোটি ৮৯ লাখ ৯০ হাজার।এ ঘটনায় জাহিদ মিয়া নামে একজনকে আটক করা হয়েছে।

 

আজ বুধবার সকাল ৬টা ৪৩ মিনিটে সিলেট ওসমানী বিমানবন্দরে আবুধাবি থেকে আসা বিজি ইএ-২২৮  বিমানে অভিযান পরিচালনা করে এই স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়।

আটককৃত জাহিদ সিলেট নগরীর কোতোয়ালি থানাধীন শেখঘাট কলাপাড়া এলাকার বাসিন্দা।

লেট-৭ এপিবিএন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জয়নাল আবেদীন বলেন, বিজি ইএ-২২৮ এর বিমানে যে সিটের (১০/অ নং এ) নিচে স্বর্ণের বারসহ জাহিদকে পাওয়া যায়, সেটা তার নির্ধারিত সিট ছিল না। পাসপোর্ট যাচাই-বাছাই করে দেখা যায়, তার নির্ধারিত সিট ছিল ১০/ই নং এ-তে। গত এক মাসে তিনি সিলেটে বেশ কয়েকবার আসা-যাওয়া করেছিলেন।

অবৈধভাবে স্বর্ণের বার নিয়ে আসার দায়ে আটক জাহিদের বিরুদ্ধে  সিলেট মহানগর পুলিশের বিমানবন্দর থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানায় পুলিশ।

 

আলোচিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাশ হচ্ছে আজ

একাত্তর নিউজ ডেস্কঃবহুল আলোচিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়া অনুমোদনের জন্য আজ মন্ত্রিসভার বৈঠকে উপস্থাপন করা হবে আজ।

 

মঙ্গলবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাতে জাতীয় সংসদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত বুধবারের কার্যসূচিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ছাড়াও বুধবারের কার্যসূচিতে আলোচিত সড়ক পরিবহন বিল এবং কওমি মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড বিল দুটি পাস হবে বলেও জানানো হয়েছে।

কার্যসূচি অনুযায়ী বিকাল পাঁচটায় সংসদের বৈঠক শুরু হবে।

প্রসঙ্গত: সংসদে প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অন্তত আটটি ধারায় গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের আপত্তি থাকলেও তা সুরাহা না করে ১৭ সেপ্টেম্বর ( সোমবার) সংসদে রিপোর্ট উপস্থাপন করেছে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। তবে গণমাধ্যমের আপত্তির ক্ষেত্রে কয়েকটি ধারায় কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়েছে। এক্ষেত্রে এই আইনের অধীনে অপরাধের কিছু জায়গায় শাস্তি কমানোরও সুপারিশ করা হয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যায় সংসদীয় কমিটির সভাপতি ইমরান আহমেদ বিলের প্রতিবেদন সংসদে উপস্থাপন করেন। এই বিলে গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের অংশগ্রহণের প্রসঙ্গ এনে বিল উত্থাপনকালে সংসদে দেওয়া বক্তব্যে কমিটির সভাপতি ইমরান আহমেদ বলেন, গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের বক্তব্য সন্নিবেশ করে প্রয়োজনীয় সংশোধনী আনা হয়েছে। এই বিলটি পাস হলে তা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ায় ভূমিকা রাখবে। এদিকে সংসদে রিপোর্ট উপস্থাপনের আগেই রিপোর্টের সুপারিশগুলো নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর সম্পাদক পরিষদ গতকাল রবিবার এক বিবৃতি দিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

গত ২৯ জানুয়ারি ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮’এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা। বহুল আলোচিত এই আইনের খসড়া আইনসভার অনুমোদনের জন্য গত ৯ এপ্রিল সংসদে উত্থাপন করেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার। এই বিলটি চলতি অধিবেশনে পাস হবে বলে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানিয়েছিলেন।

অন্যদিকে, ১৩ সেপ্টেম্বর জাতীয় সংসদে উত্থাপিত হয়েছে বহুল আলোচিত ‘সড়ক পরিবহন বিল ২০১৮’। এতে বেপরোয়া মোটরযানের কবলে পড়ে দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ পাঁচ বছরের সাজার বিধান রাখা হয়েছে। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিলটি উত্থাপন করেন। পরে তা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে সাত দিনের মধ্যে সংসদে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটিতে পাঠানো হয়। গত ২৯ জুলাই রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা। তাদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে সরকার আইনটি দ্রুত প্রণয়নের উদ্যোগ নেয়।

অপরদিকে, সংসদের চলতি অধিবেশনেই উত্থাপিত হয়েছে ‘কওমি মাদ্রাসাসমূহের দাওরায়ে হাদিসের সনদকে মাস্টার্স ডিগ্রি (ইসলামিক স্টাডিজ ও আরবি) সমমান প্রদান আইন, ২০১৮’। এর আগে গত ১৩ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভা বৈঠকে কওমি সনদের স্বীকৃতি আইনের খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়।

২০১৭ সালে ১১ এপ্রিল গণভবনে হেফাজতে ইসলামের আমির ও বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের (বেফাক) সভাপতি আল্লামা শাহ আহমদ শফীসহ প্রায় ৩০০ জন আলেমের উপস্থিতিতে আনুষ্ঠানিকভাবে কওমি মাদ্রাসার সনদের স্বীকৃতির ঘোষণা দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর শিক্ষা মন্ত্রণালয় ১৩ এপ্রিল কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদকে মাস্টার্স ইসলামিক স্টাডিজ এবং আরবি’র সমমান ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করে। প্রকাশিত গেজেটে বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের সভাপতি ও হেফাজতের আমির আহমদ শফীকে চেয়ারম্যান করে ১৫ সদস্যের একটি বাস্তবায়ন কমিটি ঘোষণা করা হয়। এ কমিটির উদ্যোগে গঠিত হয় ‘আল-হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশ’ নামে নতুন সংস্থা। এ সংস্থার অধীনে ২০১৭ ও ২০১৮ সালে দেশের মাদ্রাসাগুলোয় দাওরায়ে হাদিস পরীক্ষাও অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বগুড়ায় ছাত্রদল নেতার মারপিটে অন্তঃসত্ত্বা নারীর সন্তান নষ্ট

একাত্তর নিউজ ডেস্কঃবগুড়া শহর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক রবিউল ইসলামের লাথিতে গৃহবধূর গর্ভপাত ঘটেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

 

ঋণের টাকার সুদ না পেয়ে গত শুক্রবার শহরের চেলোপাড়া এলাকায় ওই গৃহবধূর পেটে রবিউল লাথি মারেন বলে অভিযোগে বলা হয়। লাথির ঘটনায় রক্তক্ষরণ শুরু হলে ওই নারীকে হাসপাতালে নেওয়ার পর গর্ভপাত হয়।

অন্তঃসত্ত্বা ওই নারীর নাম শাপলা বেগম (২৫)।তিনি শহরের চেলোপাড়া এলাকার শাফি আহম্মেদের স্ত্রী। শাপলার শ্বাশুড়ি সুলতানা বেগম এ ব্যাপারে সদর থানায় চার জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। সদর থানার ওসি (তদন্ত) কামরুজ্জামান মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মামলা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শহরের চেলোপাড়া এলাকার শাফি আহম্মেদ স্থানীয় অগ্রগতি সমিতি থেকে ১৫ হাজার টাকা ঋণ নেন। এ সমিতির মালিক ছাত্রদল নেতা দারুনের স্ত্রী কুলসুম। শাফি সুদসহ ২০ হাজার টাকা পরিশোধ করলেও সমিতির লোকজন তার কাছে আরও ৩০ হাজার টাকা দাবি করে। এ টাকা না দিতে চাওয়ায় সমিতির লোকজন গত ১১ সেপ্টেম্বর বিকালে শাফি আহম্মেদের বাড়িতে যায়। তার অনুপস্থিতিতে বাড়ির আসবাবপত্র বের করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হয়। তার স্ত্রী শাপলা বেগম বাধা দিলে তাকে ছাত্রদল নেতা রবিউল হাসান দারুনের বাড়িতে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাকে কিলঘুষি ও লাথি মেরে মাটিতে ফেলে দেওয়া হয়। দারুন ওই গৃহবধূর পেটে লাথি দেয়। লাথির আঘাতে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয় ও গর্ভের তিন মাসের সন্তান নষ্ট হয়ে যায়। গুরুতর আহত শাপলা বেগম বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ব্যাপার শাপলার শ্বাশুড়ি ১৭ সেপ্টেম্বর সদর থানায় ছাত্রদল নেতা রবিউল হাসান দারুন, তার স্ত্রী কুলসুম, ভাই আন্দালিব ও ভগ্নিপতি বারিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নারুলী ফাঁড়ির এসআই আবদুল হাই জানান, আসামি দারুন আত্মগোপন করেছে। এছাড়া তার স্ত্রীসহ অপর তিন আসামি আদালত থেকে জামিনে ছাড়া পেয়েছে। অভিযুক্ত দারুন বাড়িতে না থাকায় ও তার মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

মৌলভীবাজারে সড়কে গাছ ফেলে ডাকাতি

একাত্তর নিউজ ডেস্কঃমৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে সড়কে গাছ ফেলে কয়েকটি যানবাহনে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ডাকাতদের হামলায় নয়জন আহত হয়েছেন।

 

গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত বিভিন্ন যানবাহনে ডাকাতি হয়েছে। ডাকাতরা যাত্রীদের মারধর করে মুঠোফোনসহ টাকা লুট করেছে। পরে রাত ১টার দিকে পুলিশ পৌঁছলে  ডাকাতেরা চা বাগানের দিকে পালিয়ে যায়।

ডাকাতির শিকার কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মঙ্গলবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাত পৌনে ১১টার দিকে শ্রীমঙ্গল-লাউয়াছড়া সড়কের বিটিআরআই চা বাগানের বেলতলী এলাকায় সড়কে গাছ ফেলে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে ২৫ থেকে ৩০ জন ডাকাত। এ সময় শ্রীমঙ্গলের ফাইভ স্টার হোটেল গ্র্যান্ড সুলতান টি রিসোর্ট অ্যান্ড গলফ হোটেলের স্টাফদের গাড়ি, সিএনজি অটোরিকশার চালক ও যাত্রীদের মারধর করে মুঠোফোন ও লক্ষাধিক টাকা ছিনিয়ে নেয় ডাকাতরা।

ডাকাতদের হামলায় গুরুতর আহতরা হলেন, গ্র্যান্ড সুলতান টি রিসোর্ট অ্যান্ড গলফ হোটেলের সহকারী ম্যানেজার ইমরান হোসেন, আশরাফুল ইসলাম, ড্রাইভার মনি সিংহ, আরিফ রানা, হেলাল উদ্দিন, সোহেল মিয়া, সুজন বৈদ্য, দুলাল মিয়া, মিনহাজ, মোহাম্মদ আলী, মো.আলম শেখ, মো. জুয়েল। তারা শ্রীমঙ্গল সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

আহতরা জানান, ডাকাতেরা ওই সড়কে যাত্রীদের প্রায় এক ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখে। পরে রাত ১টার দিকে পুলিশ পৌঁছলে  ডাকাতেরা চা বাগানের দিকে পালিয়ে যায়।

আহত সিএনজি অটোরিকশা চালক আলম শেখ বলেন, ‘রাত সাড়ে ১১টার দিকে ডাকাতি শুরু হয়। ৩৫ জনের মতো ডাকাত ছিল। ডাকাতদের হাতে চাকু, পিস্তল, লাঠি ও দা ছিল। ২০টি গাড়িতে লুটপাট করা হয়েছে।’

ওসি বলেন, স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে তারা ঘটনাস্থলে গেলে ডাকাতরা পালিয়ে যায়। পরে যাত্রীদের তারা উদ্ধার করেন।

এ ঘটনায় জড়িতদের আটকের জন্য ইতোমধ্যে অভিযান শুরু করা হয়েছে বলে এ পুলিশ কর্মকর্তা জানান।

টাঙ্গাইলে ড্রামের ভেতর ব্যবসায়ীর দ্বিখন্ডিত লাশ

একাত্তর নিউজ ডেস্কঃটাঙ্গাইলের ঘাটাইলে ধানক্ষেতে পড়ে থাকা ড্রামের ভেতর থেকে হেলাল উদ্দিন (৩৫) নামের এক ব্যবসায়ীর দ্বিখণ্ডিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

 

গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার খিলপাড়া এলাকা থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহত হেলাল উদ্দিন (৩৫) গোপালপুর উপজেলার ডুবাইল এলাকার গাজী শেখের ছেলে। তিনি ঘাটাইল পৌর এলাকায় ভাঙ্গারির ব্যবসা করতেন।

পুলিশ জানায়, এলাকাবাসীর উপজেলার খিলপাড়া এলাকায় একটি ধানক্ষেতে ড্রামের ভেতরে একটি লাশ দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ড্রামের ভেতর থেকে ওই ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

নিহতের লাশ দ্বিখণ্ডিত ছিল। দুর্বৃত্তরা প্রথমে তাকে হত্যা করে ড্রামের ভেতরে লাশ ভরে রাখে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ৩ জনকে আটক করা হয়েছে।  তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিনের মতো মঙ্গলবার সকালে টাঙ্গাইলের গোপালপুরের নিজ বাড়ি থেকে ঘাটাইল উপজেলায় হেলাল উদ্দিন তার কর্মস্থলের উদ্দেশে বের হয়। পরে তার কর্মস্থল থেকে ভাঙ্গরির জিনিসপত্র নিয়ে বের হয়ে আর ফিরে আসেননি। বিকেলের দিকে হেলাল বাড়িতে ফিরে না আসায় পরিবারের লোকজন তাকে একাধিকবার ফোন দিয়েও তার সাথে যোগাযোগ করতে পারেননি। এরপর থেকে তাকে আর পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে নিহতের শ্বশুর আব্দুল বাছেদ বলেন, খোঁজাখুঁজির পর আমরা পরে জানতে পারি- ঘাটাইলে একটি লাশ উদ্ধার হয়েছে। পরে আমরা থানায় এসে লাশটি সনাক্ত করি। আমরা এ ঘটনায় আসামিদের গ্রেফতার এবং বিচারের দাবি করছি।

এ ব্যাপারে ঘাটাইল থানার ওসি মাকসুদুল আলম বলেন, মঙ্গলবার রাতে পুলিশ খবর পেয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

পরিকল্পিকভাবে তাকে হত্যা করা হয়েছে। কি কারণে তাকে হত্যা করেছে তা তাৎক্ষণিভাবে ওসি জানাতে পারেননি।

জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগ দিতে ৬ দিনের সফরে ২১ সেপ্টেম্বর ঢাকা ছাড়বেন প্রধানমন্ত্রী

একাত্তর নিউজ ডেস্কঃপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের (ইউএনজিএ) ৭৩তম অধিবেশনে যোগ দিতে ৬ দিনের সরকারি সফরে ২১ সেপ্টেম্বর, শুক্রবার নিউইয়র্কের পথে যুক্তরাজ্যের লন্ডনের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করবেন।

 

২৭ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ দেওয়ার কথা রয়েছে। একইদিন তার জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেসের সঙ্গে বৈঠক করারও কথা রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আয়োজিত সংবর্ধনায় যোগ দেবেন এবং যুক্তরাষ্ট্রের সেক্রেটারি অব স্টেট মাইক পম্পেওর সঙ্গেও সাক্ষাৎ করবেন।

শুক্রবার বাংলাদেশ বিমানের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইটে লন্ডনের উদ্দেশে রওনা দেবেন প্রধানমন্ত্রী। একই দিনে লন্ডনের স্থানীয় সময় ৩টা ৫৫ মিনিটে বিমানটির হিথ্রো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের কথা রয়েছে। যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের হাইকমিশনার নাজমুল কাওনাইন প্রধানমন্ত্রীকে বিমানবন্দরে স্বাগত জানাবেন।

লন্ডনে দু’দিনের যাত্রাবিরতির পর প্রধানমন্ত্রী রবিবার সকালে নিউ ইয়র্কের উদ্দেশে রওনা হবেন।

বিমানটির ওইদিনই স্থানীয় সময় ১টা ৪০ মিনিটে নিউজার্সির নিউইয়র্ক লিবার্টি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের কথা রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মাদ জিয়াউদ্দিন এবং বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ও জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেন প্রধানমন্ত্রীকে বিমানবন্দরে অভ্যর্থনা জানাবেন।

বিমানবন্দরে অর্ভ্যথনা পর্ব শেষে একটি সুশোভিত মোটর শোভাযাত্রা সহযোগে প্রধানমন্ত্রীকে নিউইয়র্কের গ্র্যান্ড হায়াত হোটেলে নিয়ে যাওয়া হবে। যুক্তরাষ্ট্র সফরকালে তিনি সেখানেই অবস্থান করবেন।

প্রধানমন্ত্রীর যুক্তরাষ্ট্র সফরের প্রথম দিন সন্ধ্যায় নিউইয়র্কের মিডটাউনের হোটেল হিলটনে প্রবাসী বাংলাদেশী আয়োজিত এক সংবর্ধনায় যোগ দেবেন। সফরের দ্বিতীয় দিনে তিনি জাতিসংঘ সদরদফতরে জাতিসংঘে যুক্তরাষ্ট্রের স্থায়ী মিশনের আয়োজনে অনুষ্ঠেয় ‘গ্লোবাল কল টু অ্যাকশন অন ড্রাগ প্রবলেম’ শীর্ষক হাই লেভেল ইভেন্টে যোগদান করবেন।

প্রধানমন্ত্রী সেখানে জাতিসংঘ মহাসচিব এন্টোনিও গুতেরেজ এবং যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড জে. ট্রাম্পের সঙ্গে ফটোসেশনেও অংশগ্রহণ করবেন।

পরে জাতিসংঘ সদরদফতরের ইকোসক চেম্বারের (ইসিওএসওসি) ইউএন হাইকমিশনার ফর রিফ্যুজিস আয়োজিত ‘গ্লোবাল কমপ্যাক্ট অন রিফ্যুজিস:এ মডেল ফর গ্রেটার সলিডারিটি অ্যান্ড কোঅপারেশন’ শীর্ষক হাইলেভেল ইভেন্টে অংশগ্রহণ করবেন।

জাতিসংঘ সদরদফতরের দ্বিপাক্ষিক সম্মেলন কক্ষে প্রধানমন্ত্রী নেদারল্যান্ডসের প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে মিলিত হবেন।

প্রধানমন্ত্রী হোটেল গ্রান্ড হায়াতে যুক্তরাষ্ট চেম্বার অব কমার্স আয়োজিত গোলটেবিল মধ্যাহ্নভোজন বৈঠকেও অংশ নেবেন। বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সাধারণ পরিষদের সম্মেলন কক্ষে নেলসন ম্যান্ডেলা পিস সামিটেও বক্তৃতা প্রদানের কথা রয়েছে।

নিউইয়র্কের কনভেন কনফারেন্স সেন্টারে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম আয়োজিত ‘সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট ইমপ্যাক্ট সামিট’-এও তার যোগদানের কথা রয়েছে। শেখ হাসিনা জাতিসংঘ সদর দফতরের কনফারেন্স রুম ১১তে কানাডার প্রধানমন্ত্রী আয়োজিত নারী শিক্ষায় বিনিয়োগ সংক্রান্ত একটি গোলটেবিল আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন।

তিনি জাতিসংঘের বৈশ্বিক শিক্ষা বিষয়ক বিশেষ দূতের আয়োজনে জাতিসংঘ সদর দফতরের ৩ নম্বর কক্ষে অনুষ্ঠেয় ‘মেকিং ইমপসিবল পসিবল: আনলকিং হিউম্যান পটেনশিয়াল থ্রো দ্যা ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স ফ্যাসিলিটি ফর এডুকেশন’ শীর্ষক হাই লেভেল ইভেন্টে অংশগ্রহণ করবেন।

সন্ধ্যায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প আয়োজিত স্বাগত সংবর্ধনায় অংশগ্রহণ করবেন। সংবর্ধনাটি নিউইয়র্কের লোটিতে নিউইয়র্ক প্যালেস হোটেলে অনুষ্ঠিত হবে।

শেখ হাসিনা ২৫ সেপ্টেম্বর সাইবার নিরাপত্তা এবং আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বিষয়ক হাই লেভেল ইভেন্টে অংশ গ্রহণ করবেন। জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশন এবং জাতিসংঘের নিরস্ত্রীকরণ বিষয়ক কার্যালয় (ইউএনওডিএ) যৌথভাবে জাতিসংঘ সদর দফতরের ৩নং কক্ষে এটির আয়োজন করবে।

সাধারণ পরিষদ ভবনের নর্থ ডেলিগেট লাউঞ্জে জাতিসংঘের মহাসচিব আয়োজিত মধ্যাহ্ন ভোজে যোগদান করবেন প্রধানমন্ত্রী। বিকেলে জাতিসংঘের অছি পরিষদ আয়োজিত জাতিসংঘ মহাসচিবের হাই লেভেল ইভেন্ট ‘অ্যাকশন ফর পিস কিপিং’ (এ ফোর পি) এ অংশগ্রহণ করবেন তিনি।

২৬ সেপ্টেম্বর, ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক হেনরিয়েটা ফোর, ইউএন হাইকমিশনার ফর রিফ্যুজিস (ইউএনএইচসিআর) ফিলিপ্পো গ্রান্দি এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র ও নিরাপত্তা নীতি বিষয়ক উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি মঘেরিনি জাতিসংঘ সদর দফতরের দ্বিপাক্ষিক সম্মেলন কক্ষে পৃথকভাবে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন। একইস্থানে প্রধানমন্ত্রী এস্তোনিয়ার প্রেসিডেন্ট ক্রেস্টি কালিজুলেইদের সঙ্গেও বৈঠক করবেন।

২৭ সেপ্টেম্বর শেখ হাসিনা সৌদি আরবের স্থায়ী মিশন এবং ওআইসি সচিবালয়ের যৌথ উদ্যোগে জাতিসংঘ সদর দপ্তরের ১২নং কক্ষে অনুষ্ঠেয় সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কিত হাইলেভেল সাইড ইভেন্টে অংশগ্রহণ করবেন।

প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘ মহাসচিব গুতেরেজের সঙ্গে জাতিসংঘ সদরদফতরে তার সভাকক্ষে বৈঠক করবেন।আন্তর্জাতিক কমিটি অব রেডক্রসের (আইসিআরসি) প্রেসিডেন্ট পিটার মওরার সঙ্গে জাতিসংঘের দ্বিপাক্ষিক সভাকক্ষে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের কথা রয়েছে। একইদিনে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাতের কথা রয়েছে।

‘নারীর ক্ষমতায়মের মাধ্যমে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি’ শীর্ষক এই উচ্চ পর্যায়ের আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন প্রধানমন্ত্রী। এটি লিথুয়ানিয়ার প্রেসিডেন্টের আয়োজনে জাতিসংঘ সদর দফতরের ৩নং কক্ষে অনুষ্ঠিত হবে। প্রধানমন্ত্রীর জাতিসংঘ সদর দফতরে ইন্টার প্রেস সার্ভিসেস (আইপিএস) আয়োজিত সংবর্ধনাতেও যোগদানের কথা রয়েছে।

সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘ সদর দফতরে সাধারণ পরিষদের ৭৩তম অধিবেশনে ভাষণ প্রদান করবেন এবং নিউইয়র্কের পার্ক অ্যাভেনিউয়ে গ্লোবাল হোপ কোয়ালিশন আয়োজিত বার্ষিক নৈশভোজে যোগ দেবেন।

অন্যবারের মতো এবারো সাধারণ অধিবেশনে ভাষণ প্রদানের পরের দিন, ২৮ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশনের নিউইয়র্ক কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে অংশগ্রহণ করবেন প্রধানমন্ত্রী।

বিকেলে শেখ হাসিনা নিউইয়র্কের জন এফ কেনেডি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ইতিহাদ এয়ারওয়েজের একটি বিমানযোগে ঢাকার উদ্দেশে যুক্তরাষ্ট্র ত্যাগ করবেন। তার ২৯ সেপ্টেম্বর রাতে আবুধাবী হয়ে দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

লেবাননকে গোলবন্যায় ভাসালো বাঘিনীরা

একাত্তর নিউজ ডেস্কঃএএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ বাছাইপর্বের ম্যাচে কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে লেবাননকে ৮ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশের বাঘিনীরা।

 

বুধবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে শুরু হয় ম্যাচটি।

প্রথমার্ধে বাংলাদেশ এগিয়েছিল ৫-০ গোলে। জোড়া গোল করেছেন সাজেদা তহুরা, শামসুন্নাহার। একটি করে গোল করেছেন আনাই ও রোজিনা। এ জয়ে বাংলাদেশ দুই ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে।

একাধিক সুযোগ নস্টের পর বাংলাদেশ এগিয়ে যায় ১৪ মিনিটে। মনিকা চাকমার পাস ধরে এক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে গোল করেন সাজেদা।

১৯ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুন করে স্বাগতিক কিশোরীরা। তহুরার শট ক্লিয়ার করতে গিয়ে নিজেদের জালে বল পাঠান লেবাননের শোফিয়ে।

তহুরার দারুণ গোলে বাংলাদেশ ৩-০ গোলে এগিয়ে যায় ২৩ মিনিটে। আখি খাতুনের লম্বা পাস ধরে বক্সে ঢুকে দুর্দান্ত গোল করেন এ স্ট্রাইকার।

বাংলাদেশ ব্যবধান ৪-০ করে ২৬ মিনিটে অানাই মগিনির গোলে। আখির পাস থেকে ডান দিক দিয়ে ঢুকে কোনাকুনি শটে গোল করেন আনাই। ৪০ মিনিটে পঞ্চম গোল করে বাংলাদেশ। আখির লম্বা পাস ধরে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন সাজেদা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ব্যবধান বাড়িয়ে নেয় স্বাগতিক কিশোরীরা। ৪৮ মিনিটে লেবাননের এক ডিফেন্ডারের কাছ থেকে বল কেড়ে নিয়ে ছোট শামসুন্নাহার গোলরক্ষকের পাশ দিয়ে ব্যবধান ৬-০ করেন।

৬৩ মিনিটে আবার ছোট শামসুন্নাহারের গোল। সুলতানার নিচু ক্রস ধরে গোল করেন এ ফরোয়ার্ড। বাংলাদেশ ব্যবধান ৮-০ করে ৭৫ মিনিটে। বদলি ইলামনির পাস থেকে গোল করেন আরেক বদলি রোজিনা আক্তার।

তিন মাসের অসুস্থতা ছুটিতে সৈয়দ আশরাফ

একাত্তর নিউজ ডেস্কঃসংসদের কার্যক্রম থেকে আগামী ৯০ কার্য দিবসের জন্য ছুটি নিয়েছেন অসুস্থ হয়ে থাইল্যান্ডে চিকিৎসাধীন জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। তার টানা ৯০ কার্যদিবসের ছুটি মঞ্জুর করেছে জাতীয় সংসদ। 

 

মঙ্গলবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাতে দশম জাতীয় সংসদের ২২তম অধিবেশনে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী জনপ্রশাসন মন্ত্রীর ছুটির আবেদনপত্র পাঠ করে সংসদ সদস্যদের কণ্ঠভোটের মাধ্যমে ছুটি মঞ্জুর করেন।

স্পিকার বলেন, আজ ১৮ সেপ্টেম্বর জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজের মাধ্যমে জনপ্রশাসন মন্ত্রীর একটি ছুটির আবেদনপত্র পেয়েছি।

আবেদনপত্র পাঠ করে স্পিকার জানান, দশম জাতীয় সংসদের সদস্য সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের স্বাস্থ্যগত কারণে অসুস্থতাজনিত কারণে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের কার্যপ্রণালী বিধির ১৭৯(২) বিধি অনুসারে অদ্য ১৮ সেপ্টেম্বর হতে পরবর্তী একাধিক্রমে ৯০ কার্যদিবসের সংসদে অনুপস্থিতির জন্য ছুটি মঞ্জুর।

সংসদে সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বর্তমানে ব্যাংককের একটি হাসপাতালে ক্রিটিক্যাল কেয়ার মেডিসিন চিকিৎসকের ইন্টার্ন সামারি রিপোর্ট তুলে ধরা হয়।

এদিকে সৈয়দ আশরাফের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, তিনি বর্তমানে থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককের একটি হাসপাতালে ক্রিটিক্যাল কেয়ার মেডিসিন ইউনিটে ভর্তি আছেন। গত সোমবারও তার একটি অস্ত্রোপচার হয়েছে। তার চিকিৎসায় আরও অনেক দিন সময় লাগবে। এমতাবস্থায় স্বাস্থ্যগত কারণে তাকে অদ্য ১৮ সেপ্টেম্বর হতে একাধিক্রমে ৯০ দিন পর্যন্ত ছুটি মঞ্জুর প্রার্থনা করছি। এরপর কণ্ঠভোটে দিলে তা পাস হয়।

স্পিকার পূর্বে এ রকম ছুটির নজির উল্লেখ করে বলেন, কার্যপ্রণালী বিধির ১৭৯(২) বিধি অনুসারে কোনো সংসদ সদস্যের অনুপস্থিতির বিষয়ে ওই এমপির আবেদন সংসদে পাঠ করে শোনানোসহ বিতর্ক ছাড়া ভোট দেয়ার বিধান রয়েছে। রেওয়াজ অনুযায়ী স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সংসদে অর্থাৎ ২১ জানুয়ারি ১৯৭৪, ২৬ জুন ১৯৭৫ এবং নবম জাতীয় সংসদের ১৮ মার্চ ২০১২ ও ৫ জুন ২০১৩ তারিখে কয়েকজন সংসদ সদস্যের অনুরোধ সংসদ গ্রহণ করেছে।

সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টে আরো ২০ কোটি টাকা অনুদানের ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর

একাত্তর নিউজ ডেস্কঃবাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টে ২০ কোটি টাকা অনুদান দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর আগে তিনি ৫ কোটি টাকা দিয়ে এ কল্যাণ ট্রাস্ট্রের যাত্রা শুরু করেছিলেন।

 

বুধবার সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শাপলা হলে অসুস্থ, অসচ্ছল ও দুর্ঘটনাজনিত কারণে আহত এবং নিহত সাংবাদিক পরিবারের সদস্যদের আর্থিক সহায়তা ভাতা/অনুদানের চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ ঘোষণা দেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন করে দিয়েছি। এই ফান্ডে আমি কিছু টাকা দিয়েছিলাম। পত্রিকার মালিকরা এই ফান্ডে কোনও টাকা দেননি। মাত্র দুজন টেলিভিশন মালিক ফান্ডে সহায়তা করেন। সেখানে এখন ১৪ কোটি টাকা আছে। আমি আরও ২০ কোটি টাকা দেবো।’ এসময় সংবাদমাধ্যম মালিকদের কল্যাণ ট্রাস্টে অনুদান দেওয়ার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য চলাকালে মঞ্চ থেকে সাংবাদিকরা এই অনুদান আরও বাড়ানোর জন্য তাঁকে অনুরোধ করেন। এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি এই ফান্ড গঠন করেছি। গণমাধ্যম মালিকরা এখনও এতে হাত বাড়াচ্ছেন না। আনোয়ার হোসেন মঞ্জু কিছু সহায়তা দিয়েছেন। মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের মালিক কিছুটা সহায়তা করেছেন। আমি সব টেলিভিশন ও পত্রিকার মালিকদের এই ফান্ডে অনুদান দেওয়ার আহ্বান জানান। সেই সঙ্গে বলেন, প্রয়োজনে আমি আরও সহায়তা দেবো। এসময় ফের ২০ কোটি টাকা অনুদান দেওয়ার দাবি করেন সাংবাদিকরা। জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ঠিক আছে ২০ কোটি টাকা-ই দেবো।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘বাংলাদেশের সার্বিক উন্নয়নে আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করে যাওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছি। আমি মনে করি, এটি আমার একটা দায়িত্ব। মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য যা যা করা দরকার আমরা তা করছি।

শেখ হাসিনা বলেন, আমরা সংবাদপত্র ও মিডিয়ার স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। আমরা এত উন্নয়ন করার পরও অনেকেই নানাভাবে সমালোচনা করেন। আমরা সংবাদপত্র বা মিডিয়ার কাউকে মুখ বা গলা চেপে ধরিনি। এ কথা কেউ বলতে পারবে না।

তিনি বলেন, ‘শুধু সাংবাদিক নয়, সব পেশাজীবী মানুষের উন্নয়নে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। আমি মনে করি, এটা আমার দায়িত্ব ও কর্তব্য। কারণ, বঙ্গবন্ধুও সারাজীবন শুধু মানুষের জন্য কাজ করে গেছেন।’

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রী তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, তথ্য মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি রহমত আলী এমপি প্রমুখ।

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদকের বাছাই

এমপিওভুক্ত হচ্ছেন বাদ পড়া ৪৯৪ শিক্ষক

একাত্তর নিউজ ডেস্কঃদীর্ঘদিন ধরে বঞ্চিত স্কুল ও কলেজের তথ্যপ্রযুক্তি, বিজ্ঞান শিক্ষক, চারুকলা এবং শ্রেণি শাখার বাদ পড়া ৪৯৪ জন শিক্ষক নতুন করে এমপিওভুক্ত হওয়ার...